জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা

একজন জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার্থী হিসেবে। আপনার মধ্যে অবশ্যই যোগ্যতা থাকতে হবে। তবে তবে প্রাথমিক ভাবে আপনার জন্য যে সকল জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতার প্রয়োজন হবে। সে গুলো নিচে উল্লেখ করা হলো। যেমন, 

 

  1. কমপক্ষে স্নাতক পাস করতে হবে। 

  2. শিক্ষাজীবনে শুধুমাত্র একটি তে তৃতীয় বিভাগ সমমান ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে। 

  3. বয়স সর্বনিম্ন ১৮ বছর হতে হবে। 

 

মূলত যদি আপনি একজন শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন। আর আপনার যদি উপরের যোগ্যতা গুলো থাকে। তাহলে আপনি জুনিয়ার শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

 

তবে এর বাইরেও জুনিয়ার শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা হিসেবে আরো বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় রয়েছে। যে গুলো নিচে আলোচনা করা হলো। 

জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা

জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন কাকে বলে ?

যেহেতু আপনি জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা সম্পর্কে জানতে এসেছেন। সেহেতু অবশ্যই আপনার জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন কাকে বলে। সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা রাখতে হবে। 

 

তো আমাদের বাংলাদেশ এর মধ্যে যে সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো তে শিক্ষক নিয়োগ করার জন্য। আমাদের বাংলাদেশ সরকার ২০০৫ সালে NTRCA এর মাধ্যমে নিবন্ধন পরীক্ষা চালু করেছে। 

 

যেখানে আপনি একজন প্রার্থী হয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। আর আপনি যদি সেই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারেন। তাহলে আপনি আমাদের বাংলাদেশের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো তে শিক্ষক এর চাকরি করতে পারবেন। 

 

কিন্তু আপনি যদি এই নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে না পারেন। তাহলে আপনি বাংলাদেশের কোন বেসরকারি বিদ্যালয় কিংবা কলেজে শিক্ষকতার চাকরি করতে পারবেন না। 

জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা কি?

যেহেতু আপনি জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার মাধ্যমে বাংলাদেশের বেসরকারি বিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষকতার চাকরি করতে পারবেন। সেহেতু এই নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার জন্য। অবশ্যই আপনার নির্ধারিত যোগ্যতার প্রয়োজন হবে। 

See also  জমির দাগ নম্বর ভুল হলে করনীয় কি?

 

আর আপনি একজন প্রার্থী হয়ে আপনার যে সকল যোগ্যতার প্রয়োজন হবে। সে গুলো নিচে উল্লেখ করা হলো। যেমন,

 

  1. আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে কমপক্ষে স্নাতক পাস থাকতে হবে। 

  2. বয়সের দিক থেকে সর্বনিম্ন ১৮ বছর এবং সর্বোচ্চ বয়স ৩০ বছর পর্যন্ত হতে হবে। 

  3. আপনাকে অবশ্যই একজন বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। 

 

যদি আপনার উপরোক্ত যোগ্যতা গুলো থাকে। তাহলে আপনি কোন প্রকার বাধা ছাড়াই জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। 

 

কিন্তু এমন অনেক বিষয় রয়েছে। যে গুলোর কারণে আপনি জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত হতে পারেন। আর সেই বিষয় গুলো হলো, 

 

  1. আপনার শিক্ষা জীবনে শুধুমাত্র একবার তৃতীয় বিভাগ বা এর সমমান রেজাল্ট থাকলে সমস্যা হবেনা। 

  2. কিন্তু যদি আপনার একাধিকবার তৃতীয় বিভাগ বা সমমান রেজাল্ট থাকে। তাহলে আপনি অযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত হবেন। 

  3. আপনি যদি স্নাতক পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হয়ে থাকেন। সে ক্ষেত্রে আপনি অযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে চিহ্নিত হবেন। 

  4. তবে আপনি যদি সদ্য স্নাতক পাস করে থাকেন। তাহলে আপনি আপনার প্রবেশপত্র কিংবা মার্কশীট এর মাধ্যমে উক্ত নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। 

  5. আপনার সর্বোচ্চ বয়স ৩০ বছর এর বেশি হলে। আপনি জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন না। 

 

মূলত জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা গুলো কি কি। সে গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। 

 

এর পাশাপাশি যে সকল বিষয়ের কারণে আপনি অযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত হবেন। উপরের আলোচনা তে সেই বিষয় গুলো সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দেওয়া হয়েছে। 

এনটিআরসিএ কি?

NTRCA – যার ফুল মিনিং হলো, Non-Government Teacher Registration and Certification Authority. মূলত এটি হলো আমাদের বাংলাদেশ এর মধ্যে একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান। যেটি আমাদের বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় এর অধীনে পরিচালনা করা হয়। 

See also  নিকাশ ঘর কাকে বলে? কাজ ও প্রয়োজনীয়তা

 

আর এই স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান এর বিশেষ একটি কাজ রয়েছে। সেটি হলো, বাংলাদেশের মধ্যে থাকা ৩৩ হাজার বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যোগ্য শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া। আর এনটিআরসিএ নামক উক্ত প্রতিষ্ঠানের সর্বপ্রথম যাত্রা শুরু হয়েছিল ২০০৫ সালে। 

আপনার জন্য আমাদের কিছুকথা 

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন। যারা আসলে জানতে চান যে, জুনিয়র শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার যোগ্যতা কি কি। 

 

তো আপনারা যারা এই বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চান। তাদের জন্যই আজকের এই আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে। এছাড়াও আমাদের ওয়েবসাইটে শিক্ষা বিষয়ক আরো বিভিন্ন তথ্য বিনামূল্যে শেয়ার করা হয়। 

 

যদি আপনি সেই তথ্য গুলো সবার আগে পেতে চান। তাহলে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করবেন। ধন্যবাদ! ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *