ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় কি?

বাংলাদেশের এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা আসলে জানতে চায় যে, ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় গুলো কি কি।

তো তাদের উদ্দেশ্যে বলবো যে, ইতালি তে নাগরিকত্ব পাওয়া অনেক কঠিন একটি কাজ। তবে এমন অনেক ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় আছে।

যে উপায় গুলোর মাধ্যমে আপনিও ইতালি নামক এই স্বপ্নের দেশের নাগরিক হতে পারবেন।

ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় কি?

ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় গুলো কি কি?

বর্তমান সময়ে মোট ০৩ টি ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় আছে। আর সেই উপায় গুলো হলো,
  1. জন্মসূত্রে,
  2. বিবাহ করার মাধ্যমে,
  3. ১০ বছর ইতালিতে বসবাস করে,
তো উপরের আপনি যে ০৩ টি উপায় দেখতে পাচ্ছেন। সেই উপায় গুলোর মাধ্যমে আপনি ইতালির নাগরিক হতে পারবেন। [সোর্স- click here]

জন্মসূত্রে ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায়

মনে করুন, আপনার বাবা ও মা ইতালির বৈধ নাগরিক। সেক্ষেত্রে যদি আপনি তাদের সন্তান হয়ে থাকেন।
তাহলে আপনি জন্মসূত্রে ইতালির নাগরিক হওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন।
আর যদি আপনার আবেদনের সত্যতা থাকে। তাহলে আপনি জন্মসূত্রে ইতালির নাগরিক হতে পারবেন।

বিয়ে করে ইতালির নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায়

আপনি একজন বাংলাদেশি নাগরিক হয়ে যখন ইতালির কোনো (ছেলে/মেয়েকে) বিবাহ করেন। তাহলে আপনি বিয়ে করার মাধ্যমে ইতালির নাগরিকত্ব নিতে পারবেন।
এক্ষেত্রে আপনি যাকে বিয়ে করবেন। তাকে অবশ্যই ইতালির একজন বৈধ নাগরিক হতে হবে।
সেই সাথে বিয়ে করার প্রায় ০২ বছর পর্যন্ত আপনাকে তার সাথে সংসার করতে হবে। তাহলে আপনি ইতালির নাগরিক হওয়ার জন্য যোগ্য হবেন।

১০ বছর বসবাস করে ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায়

যখন আপনি অন্য একটি দেশের নাগরিক হয়ে বিভিন্ন ভিসায় ইতালিতে যাবেন। তারপর আপনি যদি একটানা ১০ বছর ইতালিতে বসবাস করেন।
তাহলে আপনি এই দীর্ঘ সময় বসবাস করার জন্য নাগরিকত্বের আবেদন করতে পারবেন।
তবে এই আবেদনের পূর্বের সময়ে আপনার কোনো ধরনের অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকা যাবেনা। এর পাশাপাশি আপনার মধ্যে ইতালির ভাষা দক্ষতা থাকতে হবে।

ইতালিতে নাগরিকত্ব পেতে কত বছর সময় লাগে?

সত্যি বলতে আপনি ইতালির নাগরিক হওয়ার জন্য আবেনদ করবেন। তারপর সাথে সাথে সেই দেশের নাগরিক হতে পারবেন না।
কেননা, আপনার আবেদন করার প্রায় ০২ বছর থেকে শুরু করে ০৪ বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
আর এই দীর্ঘ সময় পর, আপনার নাগরিকত্বের চূড়ান্ত সিন্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হবে।

ইতালির নাগরিকত্ব পাওয়ার সহজ উপায় কি?

বর্তমান সময়ে এমন কোনো ইতালির নাগরিকত্ব পাওয়ার সহজ উপায় নেই। কেননা, অন্যান্য দেশের তুলনায় ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়া অনেক কঠিন একটা কাজ।
তবে আপনি চাইলে জন্মসূত্রে, বিবাহ করার মাধ্যমে এবং দীর্ঘ সময় বসবাস করে। তারপর ইতালির নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবেন।
আর যদি আপনার সেই আবেদন গ্রহযোগ্যতা পায়। তাহলে আপনি ইতালির নাগরিকদের মতো সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

ইতালিতে কি গোল্ডেন ভিসা পাওয়া যায়?

হ্যাঁ, বর্তমান সময়ে ইতালিতে গোল্ডেন ভিসা পাওয়া যায়। তবে সেক্ষেত্রে আপনাকে বিনিয়োগ করার মাধ্যমে স্থায়ী আবাসিক পারমিট অর্জন করতে হবে।
তবে ইতালিতে আপনার বসবাসের সময়কাল কতদিন পর্যন্ত থাকবে। তার সম্পূর্ণটাই আপনার বিনিয়োগ এর উপর নির্ভর করবে।
যেমন, আপনি যদি নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ বিনিয়োগ করে ০২ বছর থাকতে পারেন। তাহলে আপনি এর থেকে আরো বেশি বিনিয়োগ করে আরো বাড়তি সময় ইতালিতে বসবাস করতে পারবেন।
আর বর্তমান সময়ে ইতালির গোল্ডেন ভিসার মূল্য হলো, €250,000 (প্রায় $273,000). মূলত এই পরিমান অর্থ থেকে বিনিয়োগ শুরু করা হয়।
আপনি চাইলে এর চাইতে আরো বেশি অর্থ বিনিয়োগ করতে পারবেন। যার মাধ্যমে আপনি আরো দীর্ঘ সময় ইতালিতে অবস্থান করতে পারবেন।

ইতালিতে জন্ম নেওয়া শিশু কি নাগরিকত্ব পাবে?

হ্যাঁ, ইতালিতে জন্ম নেওয়া শিশু ইতালির নাগরিকত্ব পাবে। কেননা, বর্তমান সময়ে ইতালিতে বিশেষ এক ধরনের আইন চালু আছে।
যাকে ইতালি নাগরিকত্বের আইন বলা হয়। আর উক্ত আইনের নাম হলো, ius soli.
যে আইনের মূল অর্থ হল, কোনো একটি শিশু যদি ইতালিতে জন্মগ্রহণ করে। তাহলে সেই শিশু ইতালির নাগরিকত্ব পাবে।
সেক্ষেত্রে যদি সেই শিশুর পিতা-মাতা উভয়ই ইতালির নাগরিক না হয়। আর শিশুটির পিতা মাতা যদি ইতালি তে স্থায়ীভাবে বসবাস করেন এবং কাজ করেন।
তাহলে সেই শিশুকে ইতালি তে নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে। আশা করি, বিষয়টি পরিস্কার ভাবে বুঝতে পেরেছেন।

আপনার জন্য আমাদের কিছুকথা

ইতালির নাগরিকত্ব পাওয়া কঠিন হলেও। বর্তমানে কত ধরনের ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় আছে।
আজকের আলোচনায় সেই উপায় ‍গুলো উল্লেখ করা হয়েছে।
তো ইতালির নাগরিকত্ব সম্পর্কে আরো কিছু জানতে চাইলে, নিচে কমেন্ট করবেন।
ধন্যবাদ, ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।
See also  চীনের প্রদেশ কয়টি ও কি কি ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *