রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা খরচ ও যোগ্যতা

আপনি কি উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার জন্য রোমানিয়া যেতে চান? -তাহলে আপনাকে অবশ্যই কিছু তথ্য জানতে হবে। আর সেগুলো হলো, 

 

  1. কিভাবে রোমানিয়া স্টুডেন্টস ভিসা আবেদন করবেন?

  2. রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা খরচ কত টাকা?

  3. রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসার জন্য কি কি যোগ্যতা লাগে?

 

আর আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাকে উক্ত বিষয় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত বলবো। 

 

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা খরচ ও যোগ্যতা

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসার খরচ কত? 

তো আপনারা যারা জানতে চান যে, রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসার খরচ কত। তাদের বলে রাখি যে, রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা খরচ বিভিন্ন বিষয়ের উপর নির্ভর করে। যেমন,:

 

  1. আপনার দেশ,

  2. আবেদনকারী প্রার্থীর বয়স,

  3. পড়াশোনার মোট সময়কাল,

  4. আপনার পড়াশোনার স্তর,

  5. আপনি যে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়বেন তার অবস্থান,

 

তবে সাধারন ভাবে একজন ব্যক্তির রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন ফি হিসেবে 100 ইউরো খরচ করতে হয়। 

রোমানিয়া তে কলেজে পড়াশোনা করার খরচ?

বর্তমান সময়ে আপনি যদি রোমানিয়ায় কলেজে লেভেলে পড়াশোনা করেন। 

 

তাহলে আপনার যে পরিমান খরচ হবে। তার একটি আনুমানিক ধারনা নিচে দেওয়া হলো। যেমন, 

 

  1. টিউশন ফিঃ 1,000-3,000 ইউরো (প্রতি বছর)

  2. থাকার খরচঃ  500-1,000 ইউরো (প্রতি মাসে)

  3. খাওয়ার খরচঃ 200-500 ইউরো (প্রতি মাসে)

  4. বই সরঞ্জামের খরচঃ 100-200 ইউরো (প্রতি বছর)

  5. অন্যান্য খরচঃ 100-200 ইউরো (প্রতি বছর)

  6. মোট খরচঃ 2,000-5,000 ইউরো (প্রতি বছর)

 

উপরের তালিকায় যে খরচের পরিমান দেখতে পাচ্ছেন। সেই খরচ গুলো অনুমান করে বলা হয়েছে। 

See also  দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের সকল দেশের নাম

 

কেননা, আপনার আসল খরচ গুলো আপনার ব্যক্তিগত পরিস্থিতির উপর নির্ভর করবে। 

রোমানিয়া তে কলেজে পড়াশোনা করার খরচ?

আপনি যদি আমাদের বাংলাদেশ থেকে রোমানিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন। 

 

তাহলে আপনার যে পরিমান খরচ হবে। তার একটি আনুমানিক ধারনা নিচে প্রদান করা হলো। যেমন, 

 

  1. টিউশন ফি (সরকারি):  প্রতি বছর 200 ইউরো থেকে 1,000 ইউরো। 

  2. টিউশন ফি (বে-সরকারি): 1,000 ইউরো থেকে 5,000 ইউরো।

  3. থাকার খরচ: প্রতি মাসে প্রায় 100 ইউরো থেকে 200 ইউরো। 

  4. খাওয়ার খরচ: প্রতি মাসে প্রায় 50 ইউরো থেকে 100 ইউরো। 

  5. বই ও সরঞ্জামের খরচ: প্রতি বছর প্রায় 100 ইউরো থেকে 200 ইউরো। 

  6. অন্যান্য খরচ: প্রতি বছর প্রায় 100 ইউরো থেকে 200 ইউরো।

 

রোমানিয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে প্রতি বছর প্রায় 2,000 ইউরো থেকে 5,000 ইউরো খরচ হয়। 

 

তবে এই যাবতীয় খরচ গুলো আপনার ব্যক্তিগত পরিস্থিতির উপর নির্ভর করবে।

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসার জন্য কি কি ডকুমেন্টস লাগে?

আপনি যদি রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করেন। তাহলে আপনাকে অবশ্যই আপনার সমস্ত প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস জমা দিতে হবে। যেমন, 

 

  1. রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন ফরম।

  2. বৈধ পাসপোর্ট যার মেয়াদ কমপক্ষে ০৩ মাস থাকতে হবে। 

  3. সদ্য তোলা ছবি। 

  4. মেডিকেল সার্টিফিকেট।

  5. আর্থিক সাপোর্ট সার্টিফিকেট।

  6. এডমিশন লেটার।

  7. টিউশন ফি রিসিপ্ট।

  8. জাতীয় পরিচয় পত্র। 

 

এগুলো ছাড়াও আপনার আরো অনেক ডকুমেন্টস লাগবে। আর সেটি ভিসা অফিস থেকে জানিয়ে দিবে। 

 

তবে মনে রাখবেন, আপনি যদি আপনার ডকুমেন্টসে কোনো ভুল করেন। অথবা প্রয়োজনীয় কোনো ডকুমেন্টস জমা না দেন। 

 

তাহলে আপনার ভিসা আবেদন প্রত্যাখ্যান হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। 

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া

যখন আপনি রোমনিয়া স্টুডেন্ট ভিসার জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনাকে নিচে দেখানো পদ্ধতি গুলো ফলো করতে হবে। যেমন, 

See also  কম সিজিপিএ নিয়ে বিদেশে উচ্চশিক্ষা সম্ভব কি?

 

  1. রোমানিয়ান দূতাবাস বা কনস্যুলেটের ওয়েবসাইট থেকে ভিসা আবেদন ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে।

  2. তারপর সেই ভিসা আবেদন ফর্মটি সঠিক ভাবে পূরণ করতে হবে।

  3. আপনার সমস্ত প্রয়োজনীয় নথি জমা দিতে হবে।

  4. নির্ধারিত ভিসা আবেদন ফি জমা দিতে হবে।

  5. সবশেষে ভিসা আবেদন ফর্মটি জমা দিন।

 

উপরে দেখানো প্রক্রিয়া গুলোর মাধ্যমে আপনি রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন করতে পারবেন। 

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন ফর্মে কি কি তথ্য দিতে হয়? 

যখন আপনি রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা আবেদন ফরম পূরণ করবেন। তখনআপনাকে নিম্ন লিখিত তথ্য গুলো প্রদান করতে হবে। যেমন,

 

  1. নামঃ……………….

  2. জন্ম তারিখঃ……………

  3. জাতীয়তাঃ………………

  4. পাসপোর্ট নম্বরঃ………………..

  5. পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখঃ…………….

  6. ঠিকানাঃ…………………..

  7. ফোন নম্বরঃ……………..

  8. ইমেল ঠিকানাঃ………………..

  9. যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছেন তার নামঃ……………..

  10. যে কোর্সে ভর্তি হয়েছেন তার নামঃ………………..

  11. পড়াশোনার সময়কালঃ…………………….

  12. আর্থিক অবস্থাঃ…………………….

  13. যে দেশে থাকবেন তার নামঃ……………………..

  14. যে দেশে থাকবেন তার ঠিকানাঃ……………………

 

প্রাথমিক ভাবে আপনার রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসায় উপরোক্ত তথ্য গুলো প্রদান করতে হবে। 

রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসায় কি জব করা যাবে?

হ্যাঁ, আপনি চাইলে রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসায় পার্ট-টাইম জব করতে পারবেন। 

 

কেননা, রোমানিয়ার সরকার স্টুডেন্টদের পড়াশোনার পাশাপাশি কিছু টাকা উপার্জন করার সুযোগ দেয়। 

 

আর আপনি শিক্ষার্থী থাকা অবস্থায় প্রতি ০৭ দিনে মোট ২০ ঘন্টা পর্যন্ত কাজ করতে পারবেন। 

 

আর রোমানিয়া তে পড়াশোনার পাশাপাশিআপনি যে কাজ গুলো করতে পারবেন। সেই কাজ গুলো নিচের তালিকায় দেওয়া হলো। যেমন, 

 

  1. রেস্তোরাঁয় কাজ,

  2. দোকান বা ফার্মেসিতে,

  3. ডেলিভারি ড্রাইভার এর কাজ,

  4. টেলিফোন এক্সিকিউটিভ এর কাজ,

  5. রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্ট,

  6. ফ্রিল্যান্স কাজ,

 

তবে এখানে একটা কথা বলে রাখা উচিত। সেটি হলো, আপনি যদি রোমানিয়ায় পার্ট-টাইম জব করতে চান। 

 

তাহলে আপনাকে অবশ্যই আপনার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কাজের অনুমতি নিতে হবে।

See also  ইউরোপের ২৬ টি দেশের নাম ও রাজধানী

আপনার জন্য আমাদের কিছুকথা

বর্তমান সময়ে আপনারা যারা রোমনিয়া স্টুডেন্ট ভিসা পেতে চান। তাদের জন্য রোমানিয়া স্টুডেন্ট ভিসা খরচ কত হবে। আজকে সেই বিষয় টি নিয়ে বিস্তারিত বলা হয়েছে। 

 

তবে এরপরও যদি আপনি রোমনিয়া স্টুডেন্ট ভিসা সম্পর্কে নতুন কিছু জানতে চান। তাহলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। 

 

ধন্যবাদ, ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *