সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় কি?

যদি আপনি সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পেতে চান। তাহলে আপনাকে অবশ্যই সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় গুলো সম্পর্কে জানতে হবে।

আর আজকের আর্টিকেলে সেই নাগরিকত্ব পাওয়ার পাশপাশি। আপনার নিকট কি কি ডকুমেন্টস থাকতে হবে। সেই বিষয় গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় কি?

সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় কি?

বর্তমান সময়ে এমন অনেক সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় আছে। আর সেগুলো হলো,
  1. সিঙ্গাপুরের নাগরিককে বিয়ে করে,
  2. ইউরোপীয় ইউনিয়ন এর নাগরিক হয়ে,
  3. দীর্ঘ সময় ধরে সিঙ্গাপুরে বসবাস করে,
উপরের তালিকা তে আপনি মোট ০৪ টি সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

বিয়ে করে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায়

মনে করুন, আপনি একজন বাংলাদেশের মানুষ। এখন যদি আপনি সিঙ্গাপুরের কোনো নাগরিক কে বিয়ে করেন।
তাহলে এই বিয়ে করার মাধ্যমে আপনি সেই দেশের একজন বৈধ নাগরিক হতে পারবেন।
তবে যদি আপনি বিয়ে করে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব নিতে চান। তাহলে আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে। যেমন,
  1. বিয়ের পর আপনাকে অন্তত তিন (০৩) বছর ধরে বিবাহিত থাকতে হবে।
  2. সেই দেশে কমপক্ষে পাঁচ (০৫) বছর ধরে বসবাস করতে হবে।
  3. আপনার মধ্যে অবশ্যই সিঙ্গাপুরের ভাষার দক্ষতা থাকতে হবে।
  4. সেই দেশের সংস্কৃতির সাথে খাপ খাইয়ে নিতে হবে।
  5. সিঙ্গাপুরের সরকারের প্রতি আনুগত্য থাকতে হবে।
তো যদি আপনি বিয়ে করার মাধ্যমে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব নিতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনাকে উপরোক্ত নিয়ম গুলো মানতে হবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন এর নাগরিক হয়ে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব

মনে করুন, বর্তমান সময়ে আপনি ইউরোপীয় ইউনিয়ন এর একজন বৈধ নাগরিক। এখন আপনি যদি সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য আবেদন করেন।
তাহলে আপনি খুব সহজেই সিঙ্গাপুরের একজন বৈধ নাগরিক হতে পারবেন।
এর পাশাপাশি যদি আপনি পৃথিবীর শক্তিশালী কোনো পাসপোর্টধারী দেশের নাগরিক হয়ে থাকেন। তাহলেও আপনি সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্বের ক্ষেত্রে প্রাধান্য পাবেন।

দীর্ঘ সময় ধরে বসবাস করে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায়

যদি আপনি গত ০৫ বছর ধরে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করে থাকেন। সেক্ষেত্রে আপনি সেই দেশের একজন বৈধ নাগরিক হওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন।
আর যখন আপনার আবেদন গ্রহন করা হবে। তখন আপনিও সেই দেশের নাগরিক হতে পারবেন।
তবে যখন আপনি এই মাধ্যমে সেই দেশের নাগরিক হওয়ার জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে। যেমন,
  1. আপনার বয়স অন্ততপক্ষে ১৮ বছর হতে হবে।
  2. সিঙ্গাপুরের ভাষায় দক্ষ হতে হবে।
  3. সেই দেশের সংস্কৃতির সাথে খাপ খাইয়ে নিতে হবে।
  4. সিঙ্গাপুরের সরকারের প্রতি আনুগত্য থাকতে হবে।
  5. আপনার কোনো প্রকার অপরাধমূলক রেকর্ড থাকা যাবেনা।
See also  বাংলাদেশের ইংরেজি সংবাদপত্রের তালিকা
তো যদি আপনার মধ্যে উপরোক্ত গুনাবলি গুলো থাকে। তাহলে আপনি সিঙ্গাপুরের নাগরিক হওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

টাকা দিয়ে কি সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়া যায়?

এখন অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, টাকা দিয়ে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়া যায় কিনা। আর আপনার মনেও যদি এমন প্রশ্ন জাগে। তাহলে শুনুন….
আপনি টাকা দিয়ে সেই দেশের নাগরিক হতে পারবেন না। আর যদিওবা এটি সম্ভব হয়। তাহলে সেটা কখনোই প্রকাশ হবেনা।
কেননা, এটি সম্পূর্ণ একটি অবৈধ পন্থা। আর এই ধরনের কাজ কেউ করলেও স্বীকার করবে না। তাই এটা নিশ্চিত ভাবে বলা সম্ভব না যে, টাকা দিয়ে আপনি সিঙ্গাপুরের নাগরিক হতে পারবেন।

সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পেতে হলে কি কি লাগে?

যখন আপনি সিঙ্গাপুরের নাগরিক হওয়ার জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনার আসলে কি কি লাগবে। সেটি নির্ভর করবে, আপনি কোন উপায়ে নাগরিক হতে চান তার উপর।
তবে প্রাথমিক পর্যায়ে আপনার যেসব ডকুমেন্টস প্রদান করতে হবে। সেগুলো নিচের তালিকায় প্রদান করা হলো। যেমন,
  1. নাগরিকত্বের আবেদনপত্র,
  2. আপনার জন্ম সনদ,
  3. বিবাহ সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে),
  4. স্থায়ী বসবাসের সনদ,
  5. সিঙ্গাপুরের ভাষার দক্ষতার সনদ,
  6. এনআইডি কার্ড এর কপি,
  7. শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ,
  8. সদ্য তোলা ছবি,
তবে এর বাইরেও যদি আপনার অন্য কোনো ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হয়। তাহলে আপনাকে কর্তৃপক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার সুবিধা কি?

মনে করুন, আপনি সিঙ্গাপুরের একজন বৈধ নাগরিক হতে পারলেন। তো এরপর আপনি বিভিন্ন ধরনের সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। যেমন,
  1. আপনি সিঙ্গাপুরের বসবাস করার পারমিশন পাবেন।
  2. সেই দেশে বিভিন্ন ধরনের কাজ/চাকরি করতে পারবেন।
  3. সরকারি ভোটে অংশগ্রহন করতে পারবেন।
  4. সিঙ্গাপুরের প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা গ্রহন করতে পারবেন।
  5. সিঙ্গাপুরের পাসপোর্ট দিয়ে অনেক দেশে ভ্রমন করতে পারবেন্
  6. নাগরিকদের প্রতি সরকার প্রদত্ত সুবিধা ভোগ করবেন।
  7. সিঙ্গাপুরের সংস্কৃতি তে অংশগ্রহন করার সুযোগ পাবেন।
See also  ইতালিতে নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় কি?
তো সিঙ্গাপুরের একটি বৈধ নাগরিক কে যেসকল সুযোগ সুবিধা প্রদান করা হয়। তার সকল সুবিধা গুলো আপনিও ভোগ করতে পারবেন।

সিঙ্গাপুর কি বিনিয়োগ করে নাগরিকত্ব দেয়?

আমাদের অনেকের মনে এই প্রশ্নটি আছে। সেটি হলো, সিঙ্গাপুর কি বিনিয়োগ করে নাগরিকত্ব দেয় কিনা।
তো বর্তমান সময়ে সিঙ্গাপুরে বিনিয়োগ করে নাগরিকত্ব প্রদান করা হয়না। যদিওবা ২০১৭ সালে বিনিয়োগ এর মাধ্যমে নাগরিকত্ব সেবা চালু করা হয়েছিলো।
কিন্তুু পরবর্তী সময়ে এই সুবিধা বন্ধ করে দেওয়া হয়। তাই আপনাকে উপরে উল্লেখিত উপায় গুলো মানতে হবে। তারপর আপনি নাগরিক হওয়ার সুবিধা পাবেন।

সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পেতে কত টাকা লাগে?

না, সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য আপনার কোনো অর্থ খরচ করতে হবেনা। বরং আপনাকে সঠিক নিয়ম মেনে আবেদন করতে হবে।
আর আবেদন করার সময় অবশ্যই আপনাকে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো প্রদান করতে হবে।
সেক্ষেত্রে আপনাকে কোনো ধরনের অর্থ খরচ করার প্রয়োজন পড়বে না।

আপনার জন্য আমাদের কিছুকথা

আজকের এই আর্টিকেল টি শুধুমাত্র তাদের জন্য হেল্পফুল হবে। যারা আসলে সিঙ্গাপুরের নাগরিকত্ব পেতে চান।
তো যদি আপনি এমন ধরনের অজানা বিষয় গুলো সহজ ভাষায় জানতে চান। তাহলে আমাদের সাথে থাকবেন।
আর ধন্যবাদ, এতক্ষন ধরে আমার লেখাটি পড়ার জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *