সৌদি আরব ভিসা কত প্রকার ও কি কি?

বর্তমান সময়ে আমাদের বাংলাদেশ থেকে যারা সৌদি আরব যেতে চান। তারা মোট ০৯ টি ভিসার মাধ্যমে সৌদি আরব যেতে পারবেন। আর সেই ভিসা গুলো হলো, 

 

  1. হজ ও ওমরাহ ভিসা,

  2. ব্যবসায়িক ভিসা,

  3. কাজের ভিসা,

  4. শিক্ষা ভিসা,

  5. সাংবাদিক ভিসা,

  6. নিরাপত্তা ভিসা,

  7. সরকারি ভিসা,

  8. ভিজিট ভিসা,

  9. ভিজিট ভিসা (ইলেকট্রনিক),

 

তো বর্তমান সময়ে সৌদি আরবে কত প্রকারের ভিসা আছে। সেই ভিসার তালিকা গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। 


সৌদি আরব ভিসা কত প্রকার ও কি কি?

বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব কোন ভিসায় যাওয়া যায়?

দেখুন, সৌদি আরবের ভিসা ০৯ প্রকার হলেও। যখন আপনি বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরব যাবেন। তখন আপনি মাত্র ০৪ প্রকারের ভিসায় যেতে পারবেন। সে গুলো হলো, 

 

  1. ভিজিট ভিসা,

  2. হজ ভিসা,

  3. ওমরাহ ভিসা,

  4. ই-ভিসা (ইলেকট্রনিক্স),

  5. শিক্ষা ভিসা,

 

আপনি যদি একজন বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে সৌদি আরব যেতে চান। তাহলে আপনাকে উপরোক্ত ভিসার মাধ্যমে যেতে হবে। 

সৌদি আরব হজ ও ওমরাহ ভিসা কি? 

আমাদের বাংলাদেশ থেকে যে সকল মানুষ হজ বা ওমরাহ পালন করার জন্য সৌদি আরব যেতে চান। তাদের জন্য এই ভিসা প্রদান করা হয়। 

 

আর বর্তমান সময়ে বাংলাদেশিদের জন্য হজ ভিসার খরচ প্রায় (১,০০,০০০ টাকা থেকে ১,৫০,০০০ টাকা)। 

 

এর পাশাপাশি ওমরাহ ভিসার খরচ প্রায় (৮,০০০ টাকা থেকে ১০,০০০ টাকা)। 

সৌদি আরব ব্যবসায়িক ভিসা কি? 

এই ভিসার মাধ্যমে সৌদি আরবে ব্যবসায়িক কাজে যাওয়া যায়। তো যারা ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে সৌদি আরব যেতে চান। তাদের জন্য উক্ত ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। 

See also  ইউরোপের নন সেনজেন ভুক্ত দেশের তালিকা

 

আর এই ধরনের ভিসার জন্য আপনাকে সিঙ্গেল এন্ট্রির জন্য ২,০০০ সৌদি রিয়াল খরচ করতে হবে। আর মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসার খরচ ৩,০০০ সৌদি রিয়াল খরচ করতে হবে। 

সৌদি আরব কাজের ভিসা কি?

অনেক মানুষ আছেন, যারা কাজ করার জন্য সৌদি আরব যেতে চান। তো তাদের জন্য এই ভিসার আবেদন করতে হয়।

 

আর বাংলাদেশ থেকে কাজের ভিসায় সৌদি আরব যেতে। সব মিলিয়ে  প্রায় ৩ থেকে ০৪ লাখ টাকা খরচ করতে হয়। 

সৌদি আরব শিক্ষা ভিসা কি? 

আপনারা যারা উচ্চ শিক্ষা নেওয়ার জন্য সৌদি আরব যেতে চান। তাদের জন্য এই ধরনের শিক্ষা ভিসা প্রদান করা হয়। 

 

আর বর্তমান সময়ে সাধারণত, সৌদি শিক্ষা ভিসা খরচ ১৫০০ থেকে ৫০০০ রিয়াল পর্যন্ত হতে পারে। 

 

আবার বিশ্ববিদ্যালয় বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভেদে এই খরচের পরিমান কম বা বেশি হতে পারে। 

সৌদি আরব সাংবাদিক ভিসা কি? 

দি আপনি সাংবাদিকতা করতে চান, তাহলে এই ভিসায় যেতে পারবেন। তবে আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে এই ভিসা আবেদন করতে চান। 

 

তাহলে আপনার বেশ কিছু যোগ্যতা থাকতে হবে। আর সেগুলো হলো, 

 

  1. আপনাকে অবশ্যই একটি স্বীকৃত সংবাদ সংস্থার কর্মচারী হতে হবে।

  2. আপনার নিকট একটি বৈধ পাসপোর্ট এবং ভিসা থাকতে হবে।

  3. সাংবাদিক পরিচয়পত্র থাকতে হবে।

  4. আপনাকে অবশ্যই সৌদি আরবের সরকারের কাছে একটি আবেদনপত্র জমা দিতে হবে।

 

তো উপরোক্ত যোগ্যতা গুলো থাকলে আপনি সৌদি আরব সাংবাদিক ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

সৌদি আরব নিরাপত্তা ভিসা কি?

এই ভিসা টি সৌদি আরবে নিরাপত্তা বা সামরিক কাজে যাওয়ার জন্য প্রদান করা হয়। 

 

তবে যদি আপনি বাংলাদেশ থেকে উক্ত ভিসার জন্য আবেদন করেন। তাহলে আপনাকে সৌদি আরবের সরকারের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হবে। 

See also  পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে মালয়েশিয়া ভিসা চেক

সৌদি আরব সরকারি ভিসা কি?

সৌদি আরবে সরকারি কাজে যাওয়ার জন্য প্রদান করা হয়। আর সৌদি আরব সরকারি ভিসাকে বেশ কয়েকটি ভাগ করা যায়। যেমন,

 

  1. সরকারি সফর ভিসা,

  2. সরকারি চিকিৎসা ভিসা,

  3. সরকারি প্রশিক্ষণ ভিসা,

  4. সরকারি মিটিং ভিসা,

 

উপরের তালিকাতে সৌদি আরবের বিভিন্ন প্রকারের সরকারি ভিসার ধরন উল্লেখ করা হয়েছে। 

সৌদি আরব ভিজিট ভিসা কি?

যারা সৌদি আরবে ভ্রমণ করতে চান। তাদের জন্য এই ভিসা প্রদান করা হয়। সাধারণত, সৌদি আরব ভিজিট ভিসার খরচ ১০০ থেকে ৫০০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে।

সৌদি আরব ভিজিট ভিসা (ইলেকট্রনিক) কি? 

এই ভিসা অনলাইনে আবেদন করা যায়। আর আপনি এখানে ক্লিক (visitsaudi.com) করে সৌদি ভিজিট ভিসার অনলাইন আবেদন করতে পারবেন। 

আপনার জন্য আমাদের কিছুকথা

সৌদি আরব ভিসা কত প্রকার ও কি কি, আজকে সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। 

 

এর পাশাপাশি সৌদি আরবের ভিসা সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য গুলো শেয়ার করা হয়েছে। 

 

তো এরপরও যদি আপনার সৌদি ভিসা সম্পর্কে কিছু জানার থাকে। তাহলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন। 

 

আর ধন্যবাদ, এতক্ষন ধরে আমাদের সাথে থাকার জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *