সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করার উপায়

Saudi mofa check: বর্তমান সময়ে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করা সম্ভব নয়। কারণ, এখন স্ট্যাটাস চেক করার জন্য আপনাকে আরো বেশ কিছু তথ্য দিতে হবে। যেমন, সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করতে হলে আপনার অ্যাপ্লিকেশন নাম্বার ও পাসপোর্ট নাম্বার এর দরকার হবে। 

তো আপনার নিকট যদি উপরোক্ত তথ্য গুলো থাকে। তাহলে আপনি সেগুলোর মাধ্যমে খুব সহজে সৌদি মোফা চেক করতে পারবেন। 

আর স্ট্যাটাস চেক করার জন্য আপনাকে যেসব কাজ করতে হবে। সেই কাজ গুলো নিচে ধাপে ধাপে দেখিয়ে দেওয়া হলো। 

সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করার উপায়

সৌদি মোফা কি?

সবার শুরুতে আমাদের সৌদি মোফা সম্পর্কে একটু ধারনা নেওয়া দরকার। তো সৌদি মোফা হলো সৌদি আরবের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। যেখান থেকে বিভিন্ন ধরনের পরিষেবা প্রদান করা হয়। যেমন, 

  1. ভিসার আবেদন,
  2. কূটনৈতিক প্রোটোকল,
  3. পাসপোর্ট ইস্যু,

আর সৌদি মোফা সর্বদাই সৌদি আরবের প্রতিনিধিত্ব ও জাতীয় স্বার্থ রক্ষা করে। তো আপনি চাইলে অনলাইনে https://www.mofa.gov.sa/en এই ওয়েবসাইট থেকে সরাসরি সৌদি মোফা এর যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন।

সৌদি মোফা চেক করার উপায়?

আপনি অনলাইন থেকে খুব সহজেই সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন। তবে চেক করার জন্য আপনাকে যেসব নিয়ম ফলো করতে হবে। সেই নিয়ম গুলো নিচে দেখানো হলো। যেমন, 

  1. সবার প্রথমে এই (https://visa.mofa.gov.sa/Home/Index) লিংকে ক্লিক করুন। 
  2. তারপর আপনার সামনে নতুন একটি পেজ অপেন হবে।
  3. এবার আপনি ডানপাশের Query নামক অপশনে তাকান। 
See also  কানাডা যাওয়ার যোগ্যতা কেমন লাগে?

এখন আপনি Inquiry type নামক একটি অপশন দেখতে পারবেন। আপনি আসলে কোন ধরনের স্ট্যাটাস চেক করতে চান। সেটি এখানে সিলেক্ট করে দিতে হবে। উদাহরন হিসেবে আমি Visa Application Number এর মধ্যে ক্লিক করলাম।

  1. তারপর আপনার সামনে ০৩ টি ফাঁকা বক্স আসবে। 
  2. প্রথম বক্সে আপনাকে Application Number দিতে হবে। 
  3. দ্বিতীয় বক্সে আপনার পাসপোর্ট নাম্বার দিতে হবে। 
  4. সবশেষে আপনাকে একটি ক্যাপচা কোড পূরন করতে হবে। 

তারপর আপনাকে Search নামক বাটনের মধ্যে ক্লিক করতে হবে। আর উক্ত বাটনে ক্লিক করার পর আপনি আপনার  সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন। 

সৌদি মোফা স্ট্যাটাস কেমন হয়?

আমরা যখন সৌদি মোফা স্ট্যাটাস চেক করবো, তখন আমরা ভিন্ন ধরনের স্ট্যাটাস দেখতে পারবো। তো আপনি যেন আগে থেকেই সেই স্ট্যাটাস গুলো সম্পর্কে জানতে পারেন। সে কারণে আমি এবার আমি সৌদি মোফা স্ট্যাটাস গুলো শেয়ার কবো। যেমন, 

01- Expired

যদি আপনার সৌদি আরবের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। তাহলে আপনি এমন ভিসা স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন। আর ভিসার মেয়াদ শেষ হলে আপনাকে অবশ্যই ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন করতে হবে। 

02 – Issued

ভিসা আবেদন করার সময় আপনি যেসব ডকুমেন্টস দিয়েছিলেন। সেই ডকুমেন্টস গুলোতে যদি সৌদি এম্বাসি কোনো ভুল খুজে পায়। তাহলে আপনি এমন ধরনের স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন।  এমন সমস্যা হলে আপনাকে দ্রুত অ্যাম্বাসির সাথে যোগাযোগ করতে হবে। 

03 – Rejected 

ভিসা আবেদন করার পর যদি অ্যাম্বাসি আপনার আবেদন গ্রহন না করে। তাহলে আপনি এমন ধরনের স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন। 

04 – Approved

যদি আপনার ভিসার আবেদন গ্রহন করা হয়, তাহলে আপনি এমন স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন। যে ভিসার মাধ্যমে আপনি সৌদি আরবে প্রবেশ করার অনুমতি পাবেন। 

05 – Pending 

ভিসা আবেদন করার পরও যদি আপনার আবেদপত্র অ্যাম্বাসির কাছে রিভিউতে থাকে। থাকে তাহলে আপনি এমন ধরনের স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন। 

See also  ইতালিতে বাংলাদেশিদের বেতন কত?

তো সৌদি ভিসা চেক করার সময় আপনি যে স্ট্যটাস গুলো দেখতে পারবেন। সেগুলো উপরের তালিকায় শেয়ার করা হয়েছে। যে স্ট্যাটাস গুলোর মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন যে, ভিসা এপ্রুভ হয়েছে কিনা। 

সৌদি আরবের ভিসা চেক করে কিভাবে?

আপনি বর্তমান সময়ে অনলাইন থেকে সৌদি আরবের ভিসা চেক করতে পারবেন। আর আপনি যদি সৌদি আরব ভিসা চেক করতে চান। তাহলে আপনাকে এই (visa.mofa.gov.sa) ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপর আপনি এপ্লিকেশন নাম্বার, পাসপোর্ট নাম্বার ও ভিসা নাম্বার দিয়ে স্ট্যাটাস চেক করতে পারবেন। 

বিশেষ বার্তাঃ আগে enjazit.gov.sa ওয়েবসাইট থেকে সৌদি আরবের ভিসা চেক করা যেতো। কিন্তুু বর্তমান সময়ে visa.mofa.gov.sa থেকে সৌদি আরবের ভিসা চেক করতে হবে। 

কেন আপনার সৌদি ভিসা আবেদন রিজেক্টেড করা হবে? 

দেখুন, আপনি যখন সৌদি আরবে প্রবেশ করতে চাইবেন। তখন আপনাকে সৌদি ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। আর ভিসার আবেদন করার সময় আপনাকে বিভিন্ন ধরনের ডকুমেন্টস জমা দিতে হবে। 

কিন্তুু তারপরও আমাদের অনেকের ভিসা আবেদন বাতিল করা হয়। তো সেই সময় আমরা বুঝতে পারিনা যে, কেন আমাদের ভিসা আবেদন বাতিল করা হলো। আর এই ভিসা আবেদন বাতিল হওয়ার অন্যতম একটি কারণ হলো, অসম্পূর্ণ ডকুমেন্টস দেওয়া। 

কেননা, সৌদি ভিসা আবেদন করার সময় আপনি যদি ভুল / জাল ডকুমেন্টস দেন। তাহলে রিভিউ করার পর আপনার ভিসা আবেদন বাতিল করা হবে। এছাড়াও আপনি যদি ভিসার সাথে সম্পৃক্ত যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যক্তি না হন। তাহলেও আপনার ভিসার আবেদন বাতিল হিসেবে গন্য করা হবে। 

তবে যদি আপনার সৌদি আরব ভিসা বাতিল করা হয়। তাহলে আপনি পুনরায় সৌদি আরব ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। কিন্তুু আপনি তখনি রি-আবেদন করবেন, যখন আপনার সমস্ত ডকুমেন্টস নির্ভুল থাকবে। 

আরব আমিরাতের নাগরিকদের কি সৌদি আরবে যেতে ভিসা লাগে?

যদি আপনি একজন আরব আমিরাতের বৈধ নাগরিক হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার ক্ষেত্রে সৌদি আরব প্রবেশ করার জন্য কোনো ধরনের ভিসার দরকার হবেনা। এর কারণ হলো, যেসব দেশ জিসিসি এর অর্ন্তভূক্ত আছে। সেই দেশের নাগরিকদের সৌদি আরবে প্রবেশ করার জন্য কোনো ধরনের ভিসার দরকার হবেনা। 

See also  জমির খাজনা দেওয়ার রশিদ বের করার নিয়ম

তবে জিসিসি এর অর্ন্তভূক্ত দেশের নাগরিক যদি সৌদি আরবে প্রবেশ করতে চায়। তাহলে অবশ্যই তাদের নিকট জাতীয় পরিচয়পত্র বা পাসপোর্ট থাকতে হবে। যেগুলোর মাধ্যমে তারা ভিসা ছাড়াই সৌদি আরব যেতে পারবে। 

সৌদি আরবে অন এরাইভাল ভিসা পাওয়া যাবে কি?

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা মূলত সৌদি আরবে অন এরাইভাল ভিসা নিতে চায়। তো সৌদি আরব বিভিন্ন দেশকে অন এরাইভাল ভিসার সুযোগ প্রদান করেছে। আর আপনি যদি সেই দেশের নাগরিক হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি উক্ত ভিসার সুবিধা নিতে পারবেন। 

আর এবার আমি আপনাকে একটি তালিকা প্রদান করবো। যে তালিকায় আপনি সেইসব দেশের নাম দেখতে পারবেন। যে দেশের নাগরিকেরা সৌদি আরবে অন এরাইভাল ভিসার আবেদন করতে পারবেন। যেমন, 

  1. ALBANIA
  2. ANDORRA
  3. AUSTRIA
  4. BELGIUM
  5. BULGARIA
  6. CROATIA
  7. CYPRUS
  8. CZECH REPUBLIC
  9. DENMARK
  10. ESTONIA
  11. FINLAND
  12. FRANCE
  13. GEORGIA
  14. GERMANY
  15. GREECE
  16. NETHERLANDS
  17. HUNGARY
  18. ICELAND
  19. IRELAND
  20. ITALY
  21. LATVIA
  22. LIECHTENSTEIN
  23. LITHUANIA
  24. LUXEMBOURG
  25. MALTA
  26. MONACO
  27. MONTENEGRO
  28. NORWAY
  29. POLAND
  30. PORTUGAL
  31. ROMANIA
  32. RUSSIA
  33. SAN MARINO
  34. SLOVAKIA
  35. SLOVENIA
  36. SPAIN
  37. SWEDEN
  38. SWITZERLAND
  39. UKRAINE
  40. UNITED KINGDOM
  41. AZERBAIJAN
  42. BRUNEI
  43. CHINA (INCLUDING HONG KONG AND MACAU)
  44. JAPAN
  45. KAZAKHSTAN
  46. KYRGYZSTAN
  47. MALAYSIA
  48. MALDIVES
  49. SINGAPORE
  50. SOUTH KOREA
  51. TAJIKISTAN
  52. UZBEKISTAN
  53. SOUTH AFRICA
  54. AUSTRALIA
  55. NEW ZEALAND

উপরের তালিকায় আপনি যেসব দেশের নাম দেখতে পাচ্ছেন। সেই দেশ গুলোর নাগরিকেরা সৌদি আরব অন এরাইভাল ভিসার সুবিধা নিতে পারবে। 

আপনার জন্য লেখকের কিছুকথা

প্রিয় পাঠক, আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাকে সৌদি মোফা চেক করার উপায় গুলো দেখিয়ে দিয়েছি। তো আজকের উপায় গুলো ফলো করতে কোনো সমস্যা হয়। তাহলে অবশ্যই আপনার সমস্যাটি নিচে কমেন্ট করে জানাবেন। 

আর আমার লেখা আর্টিকেল টি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *